শিরোনাম
যে কারণে জেল থেকে বের হয়েই স্ত্রীকে হত্যা করল স্বামী  ইরানের হামলার জবাব যেভাবে দিতে পারে ইসরায়েল অস্ট্রেলিয়ায় সমুদ্রে ডুবে মার্কেন্টাইল ব্যাংক কর্মকর্তার মৃ’ত্যু ইরানের হা’ম’লা রুখতে যেসব দেশকে পাশে পেল ইসরায়েল জয় এখন নামাজ পড়া শুরু করেছে : অপু বিশ্বাস কেউ নাক গলালে আরও ভ’য়াবহ হা’ম’লার হুঁশিয়ারি ইরানের ২৪ নয়, ২৬ ঘণ্টায় ১ দিন ঘোষণার দাবি! পায়ুপথে ঢুকে গেল ৬ ইঞ্চি ডাব, এরপর… টিকটক বানাতে ফুফাতো বোনকে নিয়ে নদীতে ঝাঁপ, কিশোরের মৃত্যু ঈদ সালামি নিয়ে তর্ক, স্বামীকে কো’পা’লেন স্ত্রী বাথরুমে মিলল ছাত্রলীগ নেতার ঝুলন্ত ম’র’দেহ  প্রেমে ব্যর্থ হয়ে কিশোরীকে ধ’র্ষ’ণ, তরুণ গ্রেপ্তার ঝিনাইদহের হরিণাকুণ্ডু উপজেলায় পুতনিকে ধর্ষণের অভিযোগে দাদাকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ উত্তেজনার মধ্যেই ইসরায়েলে অর্ধশতাধিক রকেট হামলা ইসরায়েলকে রক্ষা করতে আমরা অবশ্যই সহযোগিতা করব: বাইডেন ঈদে ‘বিড়ি’ নিয়ে চমক দিলেন জায়েদ খান! জানা গেল ভাইরাল তরুণ-তরুণীর মারধরের কারণ ১০০ বছর পর খুলল মসজিদ, ঈদের নামাজ পড়লেন মুসলিমরা সৌদির সঙ্গে মিল রেখে দেশের বিভিন্ন স্থানে উদযাপিত হচ্ছে ঈদ ঈদের দিন বৃষ্টি না রোদ, কী বলছে আবহাওয়া অধিদপ্তর
মঙ্গলবার, ১৬ এপ্রিল ২০২৪, ০৭:৫১ পূর্বাহ্ন

অমর ২১শে ফেব্রুয়ারি আজ

নিজস্ব প্রতিবেদক
আপলোড সময় : মঙ্গলবার, ২০ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪

মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস আজ। মাতৃভাষা আন্দোলনের ৭০ বছর পূর্ণ হচ্ছে এদিন। রক্তস্নাত ভাষা আন্দোলনের স্মৃতিবহ মহান শহীদ দিবস। বাংলা মায়ের বীর সন্তানেরা মাতৃভাষার সম্মান রক্ষার্থে ১৯৫২ সালের এই দিনে বুকের রক্তে রঞ্জিত করেছিলেন ঢাকার রাজপথ। পৃথিবীর ইতিহাসে সৃষ্টি হয়েছিল মাতৃভাষার জন্য আত্মদানের অভূতপূর্ব নজির। আজ প্রভাতফেরি নামবে সারা দেশের পথে পথে। ফুলে ফুলে ভরে উঠবে দেশের সব শহীদ মিনারের বেদী।

১৯৫২ সালের ২১ ফেব্রুয়ারি বাংলাকে রাষ্ট্রভাষা করার দাবিতে বাংলার (তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তান) ছাত্র ও যুব সমাজসহ সর্বস্তরের মানুষ সে সময়ের শাসক গোষ্ঠীর চোখ-রাঙানি ও প্রশাসনের ১৪৪ ধারা উপেক্ষা করে স্বতঃস্ফূর্তভাবে রাজপথে নেমে আসে। মায়ের ভাষা প্রতিষ্ঠার আন্দোলনের দুর্বার গতি পাকিস্তানি শাসকদের শঙ্কিত করে তোলায়; সেদিন ছাত্র-জনতার মিছিলে পুলিশ গুলি চালায়। এতে সালাম, জব্বার, শফিক, বরকত ও রফিক গুলিবিদ্ধ হয়ে শহীদ হন। তাদের রক্তের বিনিময়ে বাংলা এ দেশের রাষ্ট্রভাষার স্বীকৃতি পায়। যার ধারাবাহিকতায় পরবর্তীতে আসে বাংলাদেশের স্বাধীনতা।

১৯৯৯ সালের ১৭ নভেম্বর জাতিসংঘের শিক্ষা, বিজ্ঞান ও সংস্কৃতি বিষয়ক সংস্থা (ইউনেস্কো) মহান একুশের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের স্বীকৃতি দেয়, যে কারণে আন্তর্জাতিক পর্যায়েও দিবসটি পালিত হচ্ছে।

 

রাজধানী ঢাকাসহ সারা দেশের শহিদ মিনারে ফুল দিয়ে একুশের মহান শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাচ্ছে জাতি। রাত ১২টা ১ মিনিটে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণের মধ্য দিয়ে একুশের কর্মসূচি শুরু হয়। প্রথমে রাষ্ট্রপতি মো. সাহাবুদ্দিন ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ করবেন। এছাড়া কালো ব্যাজ ধারণ করে প্রভাতফেরি সহকারে আজিমপুর কবরস্থানে শহীদদের কবরে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ ও শ্রদ্ধা জানানো হবে।

বাঙালি জাতির জন্য এই দিবসটি হচ্ছে চরম শোক ও বেদনার। মায়ের ভাষা বাংলার অধিকার আদায়ের জন্য সর্বোচ্চ ত্যাগের মহিমায় উদ্ভাসিত এ দিন। যে কোনো জাতির জন্য সবচেয়ে মহৎ ও দুর্লভ উত্তরাধিকার হচ্ছে মৃত্যুর উত্তরাধিকার- মরতে জানা ও মরতে পারার উত্তরাধিকার। ১৯৫২ সালের একুশে ফেব্রুয়ারি শহীদরা জাতিকে সে মহৎ ও দুর্লভ উত্তরাধিকার দিয়ে গেছেন।

একুশে ফেব্রুয়ারি সরকারি ছুটি। এদিন দেশের সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এবং সরকারি, আধা-সরকারি, স্বায়ত্তশাসিত ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের ভবনে সূর্যোদয়ের সাথে সাথে সঠিক নিয়মে, সঠিক রং ও মাপে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত এবং কালো পতাকা উত্তোলন করা হবে। দিবসটি পালন উপলক্ষ্যে জাতীয় অনুষ্ঠানের সঙ্গে সঙ্গতি রেখে দেশের সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, সকল স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠান, জেলা ও উপজেলা প্রশাসন, বিদেশে অবস্থিত বাংলাদেশ মিশনসমূহ বিভিন্ন কর্মসূচি গ্রহণ করেছে।


এই বিভাগের আরও খবর