শিরোনাম
আন্দোলনকারীদের দেশে থাকার অধিকার নেই: জাফর ইকবাল স্ত্রীর দাবি নিয়ে স্বামীর বাড়িতে অনশন আগামীকাল সারা দেশে ‘কমপ্লিট শাটডাউন’ ঘোষণা শাবি ছাত্রলীগের কক্ষ থেকে পিস্তল ও দেশীয় অস্ত্র উদ্ধার সরকারি চাকরিজীবীদের বেতন বাড়ছে ২৭ শতাংশ, আগস্ট থেকে কার্যকর রাবি প্রশাসনকে সময় বেধে দিলেন আন্দোলনকারীরা রংপুর পার্ক মোড়ের নাম ‌‘শহীদ আবু সাঈদ চত্বর’ দিলেন শিক্ষার্থীরা কোটাবিরোধী শিক্ষার্থীদের আন্দোলন, ৩ ঘণ্টা পর ট্রেন চলাচল শুরু নওগাঁয় কোঠা সংস্কার মিছিল ছাত্রলীগের বাঁধায় পন্ড, উভয় পক্ষের বাহাস জামালপুরে ট্রেন ও সড়ক অবরোধ কফিন ধরে আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার শপথ শিক্ষার্থীদের কোটা সংস্কার : সন্ধ্যায় জাতির উদ্দেশে ভাষণ দেবেন প্রধানমন্ত্রী মানিকগঞ্জের গড়পাড়া ইমাম বাড়িতে পবিত্র আশুরার শোক মিছিল মানিকগঞ্জের গড়পাড়া ইমাম বাড়িতে পবিত্র আশুরার শোক মিছিল বিশ্ব গণমাধ্যমে কোটা আন্দোলনে নিহতের খবর পাসপোর্টের রোকনের ঘরে আলাদিনের চেরাগ নারায়ণগঞ্জ পাসপোর্ট অফিসে লাগামহীন ঘুষ বাণিজ্য : রোহিঙ্গা পাসপোর্টও হয় কোটা সংস্কার আন্দোলনে সমর্থন জানালেন জি এম কাদের পাসপোর্টের রোকনের ঘরে আলাদিনের চেরাগ নারায়ণগঞ্জ পাসপোর্ট অফিসে লাগামহীন ঘুষ বাণিজ্য : রোহিঙ্গা পাসপোর্টও হয়
মঙ্গলবার, ২৩ জুলাই ২০২৪, ০৭:৩৭ পূর্বাহ্ন

গভীর রাতে ছাদ ফুটো করে চার ফাঁসির আসামির পলায়ন, পরে গ্রেপ্তার

নিজস্ব প্রতিবেদক
আপলোড সময় : বুধবার, ২৬ জুন, ২০২৪
গভীর রাতে ছাদ ফুটো করে চার ফাঁসির আসামির পলায়ন, পরে গ্রেপ্তার

বগুড়া জেলা কারাগার থেকে গতকাল মঙ্গলবার দিবাগত রাতে মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত চার আসামি ছাদ ফুটো করে দেয়াল পার হয়ে পালিয়েছিলেন। পরে তাঁদের গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

বগুড়া জেলা কারাগারের জেলার মোহাম্মদ ফরিদুর রহমান প্রথম আলোকে বিষয়টি নিশ্চিত করেন। তিনি প্রথম আলোকে বলেন, চারজনই ফাঁসির আসামি। তাঁরা পালিয়েছিলেন। পরে কারাগারের পাশের এলাকা থেকে তাঁদের ধরা হয়।

মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত চার আসামি হলেন মো. নজরুল ইসলাম মঞ্জুর (৬০), মো. ফরিদ শেখ (২৮), মো. আমির হামজা ওরফে আমির হোসেন (৩৮) ও মো. জাকারিয়া (৩১)।

বগুড়ার পুলিশ সুপার (অতিরিক্ত ডিআইজি পদে পদোন্নতিপ্রাপ্ত) সুদীপ কুমার চক্রবর্ত্তী প্রথম আলোকে বলেন, দিবাগত রাত ৩টা ৫৬ মিনিটে বগুড়া জেলা কারাগারে থাকা মৃত্যুদণ্ডাদেশপ্রাপ্ত চার আসামি প্রিজন সেলের ছাদ ফুটো করে পালিয়ে যায় বলে তাঁরা খবর পান। সঙ্গে সঙ্গে বেতারবার্তার মাধ্যমে বগুড়া সদর থানার সব টহলদলকে সর্বোচ্চ সতর্ক অবস্থায় রাখা হয়। বগুড়া সদর থানার টহলদল জেলা কারাগার-সংলগ্ন নদীর ওপারের চাষীবাজার থেকে ভোর রাত ৪টা ১০ মিনিটে তাঁদের গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হয়। এরপর তাঁদের বগুড়া গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) কার্যালয়ে নেওয়া হয়। পুলিশ হেফাজতে থাকা চারজনকে শনাক্ত করেন বগুড়া জেলা কারাগারের জেলার।

পুলিশ জানায়, এই ঘটনায় পরবর্তী আইনানুগ ব্যবস্থা নিতে চারজনকে আদালতে হাজির করা হবে।


এই বিভাগের আরও খবর