শিরোনাম
নারায়ণগঞ্জ পাসপোর্ট অফিসে লাগামহীন ঘুষ বাণিজ্য : রোহিঙ্গা পাসপোর্টও হয় কোটা সংস্কার আন্দোলনে সমর্থন জানালেন জি এম কাদের পাসপোর্টের রোকনের ঘরে আলাদিনের চেরাগ নারায়ণগঞ্জ পাসপোর্ট অফিসে লাগামহীন ঘুষ বাণিজ্য : রোহিঙ্গা পাসপোর্টও হয় রংপুরে আন্দোলনকারীদের ওপর টিয়ারগ্যাস, রাবার বুলেট নিক্ষেপ, আহত ৩০ তালতলীতে ৩২ লিটার চোলাই মদসহ আটক ১ বিশ্ব গণমাধ্যমে কোটা সংস্কার আন্দোলন ইমরানের দল পিটিআইকে নিষিদ্ধ করছে পাকিস্তান সরকার অ্যান্টিভেনম প্রয়োগের পরও ২০% রোগীর মৃত্যু দি মারিয়া, নিজের চোট আর শিরোপা জয়ের রোমাঞ্চ নিয়ে মেসির আবেগঘন পোস্ট ওমানে মসজিদের কাছে গোলাগুলি, নিহত ৪ আমি মারা যেতে পারতাম: ট্রাম্প কানে ব্যান্ডেজ নিয়ে সম্মেলনে ট্রাম্প, পেলেন আনুষ্ঠানিক মনোনয়ন আমি রাজাকার’ স্লোগানধারীদের শেষ দেখিয়ে ছাড়বে ছাত্রলীগ: সাদ্দাম হোসেন নেপালে দুই বাসের ৫৭ যাত্রী এখনো নিখোঁজ, নদীর পাড়ে অপেক্ষায় স্বজনরা ৪৬ বছর পর খুলল রত্ন ভাণ্ডারের দরজা, কী আছে এতে? ৪৬ বছর পর খুলল রত্ন ভাণ্ডারের দরজা, কী আছে এতে? ছেলের বিদেশযাত্রায় ১০ দিনের জন্য মুক্তি পেলেন খুনের আসামি বাবা স্বামী কালো বলে সন্তানকে ফেলে বাপের বাড়িতে স্ত্রী! পিতৃত্ব অস্বীকার প্রবাসী স্বামীর, গলা কেটে যমজ সন্তানকে খুন
মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই ২০২৪, ০৬:৫২ অপরাহ্ন

লালমনিরহাটে আদায় হচ্ছে  অতিরিক্ত টোল, ভারতীয় গরু দিয়ে সয়লাব

লালমনিরহাট প্রতিনিধি:
আপলোড সময় : সোমবার, ২৪ জুন, ২০২৪

লালমনিরহাটের কালীগঞ্জ উপজেলার ঐতিহ্যবাহী চাপাঁরহাট পশুর হাটে ইজারাদার কতৃক  অতিরিক্ত টোল আদায়ের অভিযোগ উঠেছে ।

জানা গেছে  উপজেলার হাটগুলোতে সরকারী বিধি মোতাবেক টোল আদায় না করে ইজারাদারগন নিজেদের মত টোল আদায় করে আসছেন র্দীঘদিন থেকে। এ বিষয়ে কখনো অতীতে ভ্রাম্যমান আদালত বা হার্ডগুলোর প্রবেশপথে কোনরূপ টোলচাট টাঙ্গাতে দেখা যায়নি। ফলে হাটগুলোর ইজারাদারগণ নিজেদের ইচ্ছেমতো গলাকাটা টোল আদায় করে চলেছেন। পশুর হাটে সরকারি বিধি মোতাবেক গরু প্রতি ৩৫০ টাকা এবং ছাগল বা ভেড়া প্রতি ৬০ টাকা নেওয়ায় নিয়ম থাকলেও তা উপেক্ষা করে হাট ইজারাদার গরু প্রতি ৭০০ থেকে ৮০০  টাকা ও ছাগল প্রতি ৩০০ টাকা থেকে ৫০০ শত টাকা টোল আদায় করে আসছেন।

পশুর হাটে আসা ক্রেতা বিক্রেতারদের অভিযোগ উপজেলার পশুর হাট গুলোতে গরু ছাগল, ভেড়া সহ যাই কিনেন না কেন ইজারাদারগণ আমাদের ক্রেতা বিক্রেতা উভয়ের নিকট হতে টোল আদায় করে থাকেন। যদিও নিয়ম আছে ইজারাদারগণ যেকোনো এক পক্ষের কাছ থেকে টোল আদায় করার কথা কিন্তু তারা উভয়ের নিকট হতে টোল আদায় করে সাধারন মানুষ ও হাটে আসা ক্রেতা বিক্রেতাদের জিম্মি করে এ অতিরিক্ত টোল আদায় করছেন।  এ বিষয়ে প্রশাসন আগে কখনও নজরদারি করেননি।

স্থানীয়দের দাবি, উপজেলার সকল পশুর হাট গুলোর ও প্রবেশপথে বড় বড় টোল চার্ট টাঙানো সহ জনসাধারণের অবগতির জন্য উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে মাইকিং করা প্রয়োজন বলে মনে করেন স্থানীয়রা।ভুক্তভোগী আব্দুল ওহাব মিয়া বলেন আমি চাপারহাটে একটি ছাগল কিনেছি যার সরকারি টোল হলো ৬০ টাকা সেখানে আমার কাছ থেকে টোল নিয়েছে ৫০০ শত টাকা যাহা সম্পুর্ন অবৈধ, আমি মাননীয় জেলা প্রশাসক ও কালীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার মহোদয়ের নিকট অবৈধ টোল আদায়ের বিরুদ্ধে ব্যবস্হা গ্রহনের জোড় দাবি জানাচ্ছি। এদিকে প্রতিরাতে কালীগঞ্জ উপজেলার লোহাকুচি সিমান্ত দিয়ে শত শত ভারতীয় গরু পার হচ্ছে, আর এসব ভারতীয় গরু পার করার জন্য কালীগঞ্জ থানা প্রতি জোড়া গরু প্রতি নিচ্ছে ১৫০০ শত টাকা এবং ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নিচ্ছে গরুর জোড়া প্রতি ৬০০ টাকা বলে একাধিক ব্যক্তি ও গরু ব্যবসায়ীদের অভিযোগ রয়েছে।

এ বিষয়ে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট দিতি রায় বলেন, সরকারি বিধি মোতাবেক নির্ধারিত টাকা আদায় না করে, অতিরিক্ত টোল আদায় করছে চাপাঁরহাটের ইজারাদার মোঃ জামাল হোসেন খোকন এ ব্যপারে আমার কাছে অনেক ভুক্তভোগী অভিযোগ করেছেন। অতিরিক্ত টোল আদায় এর ব্যপারে যানতে চাইলে খোকন বলেন আড়াই কোটি টাকার হাট এবার নিয়েছি ৪ কোটি টাকা দিয়ে তাই হাটে অতিরিক্ত টোল আদায় করছি।এদিকে হাটে ভারতীয় গরু দিয়ে সয়লাব এ ব্যপারে যানতে চাইলে ইজারাদার বলেন আদিতমারী উপজেলার দুর্গাপুর ইউনিয়ন, ও ভেলাবাড়ী ইউনিয়নের লোহাকুচি সিমান্ত দিয়ে চেয়ারম্যান, ইউপি সদস্য ও চৌকিদারদের মোটা অংকের টাকা দিয়ে ভারতীয় গরু নিয়ে আসছে গরু ব্যবসায়ীরা কই বিজিবি ও পুলিশ প্রশাসন তো সেদিকে নজর দিচ্ছেন না। তাহলে আমার হাটে গরু উঠলে কি সমস্যা।

এ দিকে সাংবাদিকরা সংবাদ সংগ্রহ করার জন্য চাপাঁরহাটে গেলে সাংবাদিকদের কোন ক্রমেই সংবাদ সংগ্রহ করতে দেয়না ইজারাদার জামাল হোসেন খোকন,তিনি নিজেকে উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগ নেতা হিসেবে দাপটের সাথে বলেন যে আমার হাটে আমার মন যা চাবে আমি তাই করবো কাউকে কৈফিয়ত দিতে বাধ্য নই আমি। কি লেখার আছে আপনারা সাংবাদিকরা লিখতে থাকেন তাতে আমার কিছু যায় আসেনা।

এ ব্যপারে অসহায় গরু ও ছাগল ক্রেতা ও বিক্রেতারা লালমনিরহাট জেলার জেলা প্রশাসক ও  কালীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও এসিল্যাল্ড মহোদায়ের আসু হস্তক্ষেপ কামনা করছেন।


এই বিভাগের আরও খবর