February 2, 2023, 1:56 am

সাংবাদিক থাকে চাঁদাবাজ মাসুদের পকেটে!ব্যাপক চাঁদাবাজি,ফুতপাত দখল ও মুক্তিযোদ্ধাকে লাঞ্ছিত করার অভিযোগ!

নিজস্ব প্রতিনিধি
  • আপডেট সময় Tuesday, January 3, 2023
  • 434 বার পড়া হয়েছে

সিদ্ধিরগঞ্জের ১ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আনোয়ার ইসলামের সহকারী মাসুদ ওরফে চাঁদাবাজ মাসুদ। এলাকার মানুষের কাছ থেকে টাকা পয়সা আত্মসাৎ করে এলাকা থেকে পালিয়ে গিয়েছিলেন।দীর্ঘদিন পরে আবারো এলাকায় আসেন,আসার পরে রাজনীতির সাথে নাম লেখান। তারপরে আর পিছনে তাকাতে হয় নি। ১ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর হাজী আনোয়ার ইসলামের সহকারী মাসুদ জমি দখল ফ্লাট দখল মানুষকে ব্ল্যাকমেইল করে বিভিন্ন অপকর্মের সাথে জড়িয়ে পড়েছেন। এ বিষয় সংবাদকর্মী তার কাছে গেলে মাসুদের সাথে কথা বললে তিনি বলেন নিউজ করে আমাকে কিছু করতে পারবেন না৷ ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক শিমরাইল মোড়ে সরকারি জায়গায় ফুটপাত দখল করে দোকান পাট বসিয়ে দোকানিদের কাছ থেকে হাতিয়ে নিচ্ছেন লক্ষ লক্ষ টাকা। এ বিষয় দোকাননিরা বলেন, আমরা টাকা না দিলে আমাদেরকে বসতে দিবেনা ভয় ভিত্তিক দেখিয়ে ও হুমকি প্রদান করে তারপরে আমাদের কাজ থেকে টাকা নিচ্ছেন, প্রতিদিন প্রতি দোকানীদের কাছ থেকে ২০০ থেকে ৩০০ টাকা চাঁদা হাতিয়ে নিচ্ছেন মাসুদ ওরফে চাঁদাবাজ মাসুদ।যানা যায় হাজী আহসানুল্লাহ সুপার মার্কেট থেকে রেন্টএ কার স্ট্যান্ড পর্যন্ত প্রায় ৬০০ শতাধিক দোকান রয়েছে। এভাবে একের পর এক চাদবাজি ও অপকর্ম চালিয়ে যাচ্ছে এই চাঁদাবাজ মাসুদ।একাধিকবার বিভিন্ন গণমাধ্যময়ে সংবাদ প্রচারিত হলেও তার বিরুদ্ধে কোন ধরনের ব্যাবস্থা গ্রহণ করেনি প্রশাসন।
এখানেই থেমে থাকেনি মাসুম ব্যাংক লোন ও নিজের জমানো টাকায় নির্মিত মুক্তিযোদ্ধার ৩ তলা বাড়ি দখলে নেয়ার হুমকি দেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে নাসিক ১নং ওয়ার্ড কাউন্সিলরের বডিগার্ড ও তার সহযোগীদের বিরুদ্ধে। একই সময় তারা ঐ বাড়ির ভাড়ার টাকা মুক্তিযোদ্ধাকে না দিয়ে প্রতিমাসে তাদের হাতে দেয়ার জন্য শাসিয়ে দেয় ভবনের ভাড়াটিয়াদের। এ ঘটনায় ভীত ও সন্ত্রস্ত ঐ মুক্তিযোদ্ধা গতকাল সোমবার (২ জানুয়ারী) সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।
লিখিত অভিযোগ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, ২নং সেক্টরের মুক্তিযোদ্ধা মাহাবুব এনামুল হক (মুক্তি নং-০১৩০০০০১৫৪০) সিদ্ধিরগঞ্জের নাসিক ১ নং ওয়ার্ডের পাইনাদী নতুন মহল্লা এলাকায় ৩ তলা একটি বাড়ি নির্মাণ করে। ঐ বাড়ির তিন তলায় তিনি বসবাস করেন এবং প্রথম ও দ্বিতীয় তলা ভাড়া দেন। সোমবার দুপুরে নাসিক ১ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আনোয়ার ইসলামের বডিগার্ড মুল্লুক চাঁনের ছেলে মাসুদ ওরফে মাল্টিপারপাস মাসুদ, আলী বক্সের ছেলে আমির ফয়সাল, হাজী কাশেমের ছেলে রিপনসহ ৪/৫ জন সন্ত্রাসী ঐ বাড়িতে যায়। সে সময় তারা ঐ বাড়ি অচিরেই তারা দখল করার হুমকি দিয়ে তাদেরকে প্রতিমাসে ভাড়ার টাকা প্রদানের জন্য ভাড়াটিয়াদের নির্দেশ দেন। একই সময় তারা তৃতীয় তলায় মুক্তিযোদ্ধার ফ্লাটে গিয়ে তার স্ত্রী ও সন্তানদের সামনে মুক্তিযোদ্ধাকে অকথ্য ভাষায় গালমন্দ করে। এ সময় কাউন্সিলর আনোয়ার ইসলামের বডিগার্ড ফয়সাল আমির, মাসুদ রানা, রিপনসহ সন্ত্রাসীরা মুক্তিযোদ্ধাকে ভাড়ার টাকা না নিতে হুমকি দেয়। প্রতিমাসে ভাড়ার টাকা দিতে এবং তার সাথে যোগাযোগ রাখতে মাসুদ রানা তার মোবাইল নং- ০১৭৮৭—১৭১ ভাড়াটিয়াদের সরবরাহ করে। ঘটনার আকস্মিকতায় কিংকর্তব্যবিমূঢ় হয়ে পড়ে মুক্তিযোদ্ধা ও তার পরিবারের সদস্যরা। পরবর্তীতে তিনি সোমবার বিকালে সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় একটি লিখিত অভিযোগ (নং-৩৩) দায়ের করেন।

এ ব্যপারে মুক্তিযোদ্ধা মাহবুব এনামুল হক সন্ধ্যায় সাংবাদিকদের জানায়, আমার কোন এক প্রতিপক্ষের পক্ষ নিয়ে কাউন্সিলর আনোয়ার ইসলামের বডিগার্ড মাসুদ রানা, রিপন ও আমির ফয়সালসহ ৪-৫ জন সন্ত্রাসী আমার বাড়ি দখল ও আমার বাড়ির ভাড়াটিয়াদের ভাড়া তাদেরকে দিতে বলে। এসময় সন্ত্রাসীরা আমাকে ও আমার পরিবারের সদস্যদের অকথ্যভাষায় গালমন্দ করে। এতে আমি চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি।

এ ব্যাপার নাসিক ১ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আনোয়ার ইসলামের সাথে যোগাযোগ করলে তিনি এ সাংবাদিককে তার অফিসে যাওয়ার অনুরোধ করে।

নাসিক  নং ওয়ার্ডে চাঁদাবাজির পাশাপাশি ব্লাকমেইল করার অভিযোগ উঠেছে কাউন্সিলর আনোয়ার ইসলামের ব্যক্তিগত সহকারি এই মাসুদের বিরুদ্ধে। এক গার্মেন্টস কর্মীকে ধর্ষণের মিথ্যা অভিযোগ তুলে হৃদয় প্রধান নামে একজন গাড়ি চালকের কাছ থেকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করার জন্য মরিয়া হয়ে উঠেছে মাসুদ।জানা গেছে, সিদ্ধিরগঞ্জ পুল কেন্দ্রীয় ঈদগাহ কবরস্থান সংলগ্ন মমিন মিয়ার বাড়ীর নিচতলায় ফ্ল্যাট বাসায় ভাড়া থাকেন চাঁদপুর জেলার মতলব উত্তর থানার কৃষ্ণপুর গ্রামের মৃত ওয়াহেদ প্রধানের ছেলে হৃদয় প্রধান। তিনি সিটি বন্ধন পরিবহনের বাস চালক। তার স্ত্রী আদমজী ইপিজেডে একটি পোশাক কারখানায় চাকুরী করেন। একই ফ্ল্যাটে সাবলেট থাকেন সাইফ নামের একজন ও তার স্ত্রীও পোশাক কারখানায় কাজ করেন।
হৃদয় প্রধান অভিযোগ জানিয়ে বলেন, গত ২২ ডিসেম্বর রাত সাড়ে ১২ টায় ৫/৬ জন লোক নিয়ে মাসুদ আমার বাসায় গিয়ে ঘুম থেকে উঠায়। আমার বাসায় সাবলেট থাকা সাইফ এর স্ত্রীকে ধর্ষণ করেছি এমন মিথ্যা অভিযোগ তুলে বেধরক মারধর করে। মাসুদ নিজেকে পুলিশ অফিসার পরিচয় দিয়ে আমাকে হাতকড়া পড়ানোর কথা বলে। এক পর্যায় ধর্ষণের অভিযোগে কোন মামলা হবেনা বলে আমার কাছে ৫০ হাজার টাকা দাবি করে মাসুদ। আরো যেন মারধর না করে সেই ভয়ে আমি ২৮ হাজার টাকা দেই। বাকি ২২ হাজার টাকা দেওয়ার জন্য চাপ দিচ্ছে। অন্যথায় আমার বিরুদ্ধে ধর্ষণের মামলা করানো হবে বলে হুমকি দিচ্ছে। অথচ এমন কোন ঘটনাই ঘটেনি। মিথ্যা অভিযোগ তুলে আমাকে মারধর ও ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করায় আমার স্ত্রী শনিবার (২৪ ডিসেম্বর) সকালে আত্নহত্যা করার চেষ্টা চালিয়েছে।এ বিষয়ে মাসুদ বলেন, আমি কাউকে ব্ল্যাকমেইল করিনি! টাকা দাবি করার অভিযোগ সঠিক নয়। ভূক্তভোগী নারী মামলা করতে রাজি নয়। তাই দুই পরিবারকে আগামী ১ তারিখে বাড়ী ছেড়ে চলে যেতে বলা হয়েছে।

এ ব্যাপারে সিদ্ধিরগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ মশিউর রহমান পিপিএম (বার) জানায়, অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত করে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে। এ ব্যপারে কথা বলতে বডিগার্ড মাসুদ রানার ফোনে একাধিকবার ফোন দিলে তিনি ফোন কেটে দেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর