১০ বছরের গবেষণায় কৃত্রিম হাড় তৈরি করল ইরান!

221
ইরানের শহীদ বেহেশতি মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকবৃন্দ। ছবি: সংগৃহীত

১০ বছরের নিরবচ্ছিন্ন গবেষণায় কৃত্রিম হাড় তৈরি করেছে ইরান। দেশটির শহীদ বেহেশতি মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকগণ পলিমার-সিরামিক মিশ্রণের উপাদানের মাধ্যমে থ্রিডি প্রিন্টিং প্রযুক্তি ব্যবহার করে হাড় তৈরি করতে সফল হয়েছেন। ইতিমধ্যে তৈরিকৃত হাড় পাঁচজন রোগীর ওপর সফলভাবে পরীক্ষা চালানো হয়েছে।

এ গবেষণায় নিয়ে আন্তর্জাতিক মেডিকেল গবেষণা নিবন্ধ সাইটগুলোতে ১০টিরও অধিক নিবন্ধ প্রকাশিত হয়েছে।

হাড় ভাঙ্গা বা হাড়ে ডিফেক্ট বিভিন্ন কারণে হতে পারে। যেমন জন্মগত কারণ, টিউমার, ক্যান্সার এবং দুর্ঘটনায় হাড় ভেঙে যেতে পারে। এছাড়াও সড়ক দুর্ঘটনার কারণে হাড় ভাঙা রোগীদের সংখ্যা অনেক বেশি।

এ ক্ষেত্রে এ গবেষণার সফলতা হাড়ের রোগীদের জন্য একটি সুখবর বলে মনে করছেন ইরানিরা।

স্বাস্থ্যখাতে যেভাবে এগিয়ে যাচ্ছে ইরান

প্রায় ১০ বছর গবেষণা চালিয়ে কৃত্রিম শ্বাসনালী তৈরি করতে সক্ষম হয়েছেন ইরানের মেডিকেল সায়েন্সের গবেষকগণ।

এর আগে তেহরানের শহীদ বেহেশতি মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষক ও বিজ্ঞানীদের প্রচেষ্টায় প্লাস্টিক সার্জারির ক্ষেত্রে শক্তিশালী আঠালো টিস্যু তৈরি করা সম্ভব হয়েছে।

আগুনে পুড়ে যাওয়া শরীরের ক্ষতস্থান লেজারের মাধ্যমে কৃত্রিম চামড়া উৎপাদনের মাধ্যমে তা পূর্ণ হয়ে যাওয়ার মতো পদ্ধতির আবিষ্কারকও ইরানের ডাক্তারগণ।

এছাড়া থ্রি ডাইমেনশনাল মেডিকেল ইমেজ নামক নতুন পদ্ধতি উদ্ভাবন করেছেন ইরানি চিকিৎসকরা।

কার্ডিও-ওনকোলজি গবেষণায় ইরান এগিয়েছে, তারই সূত্র ধরে কিছুদিন আগে এশিয়ার প্রথম কার্ডিও-অনকোলজি গবেষণা কেন্দ্রটি ইরানের তেহরানে উদ্বোধন করা হয়েছে।

ভ্যাকসিন উৎপাদনে মধ্যপ্রাচ্যে প্রথম স্থানে রয়েছে ইরান। স্টেম সেল গবেষণার ক্ষেত্রে ইরানের অবস্থান প্রথম সারির ১০টি দেশের মাঝে।

এমন সব আবিস্কারে আন্তর্জাতিক প্রবন্ধ ডাটাবেজ গুগল স্কলার, স্কোপাস এবং ওয়েব অফ সায়েন্স কোর কালেকশান ইত্যাদি সবখানেই ইরানি গবেষকদের উল্ল্যেখযোগ্য একটি অবস্থান তৈরী হয়েছে।